ডিজিটাল মিডিয়াই হল আগামী দিনের ভবিষ্যৎ।

শিলিগুড়ি : সময়ের দ্রুততার সঙ্গে এগিয়ে চলেছে দেশ ও বিশ্ব সমাজ। ডিজিটাল যুগে আমরা যেমন প্রবেশ করেছি তেমনি প্রযুক্তি নির্ভরও আমরা হয়েছি। সাংবাদিকতার ক্ষেত্রেও এসেছে নানান উন্নত প্রযুক্তির ব্যবহার। সংবাদপত্রের পাশাপাশি রেডিও, টেলিভিশন এবং বর্তমান যুগে ডিজিটাল পোর্টাল, টুইটার ফেসবুক সমানভাবে প্রাসঙ্গিক হয়ে উঠেছে। 

যার প্রতিফলন দেখা গেল রবিবার দিন ডিজিটাল মিডিয়া অ্যাসোসিয়েশন শিলিগুড়ি ও দার্জিলিং জেলা আয়োজিত মিডিয়া ওয়ার্কশপে। শিলিগুড়ি মহকুমা পরিষদের অডিটোরিয়াম হলে আয়োজিত এই ওয়ার্কশপে উত্তরবঙ্গের সাতটি জেলা থেকে প্রায় ৮২ জন প্রতিনিধি অংশ নিয়েছিলেন। নবীন-প্রবীণ সহ সাংবাদিকতা বিভাগের অনেক ছাত্র-ছাত্রীও এদিন যোগ দিয়েছিলেন ওয়ার্কশপে। 

অনুষ্ঠানের উদ্বোধনী পর্বে ছিলেন শিলিগুড়ি মহকুমা পরিষদের সভাধিপতি অরুন ঘোষ, সহকারি সভাধিপতি রোমা রেশমি এক্কা, শিলিগুড়ি মিউনিসিপাল কর্পোরেশনের ডেপুটি মেয়র রঞ্জন সরকার, শিলিগুড়ি শিক্ষা জেলা প্রাথমিক বিদ্যালয় সংসদের চেয়ারম্যান দিলীপ রায়, শিলিগুড়ি মহকুমা পরিষদের শিক্ষা ও সংস্কৃতি বিভাগের কর্মাধ্যক্ষ নলিনী রঞ্জন রায়, দার্জিলিং সমতল জেলার তৃণমূল সভানেত্রী  পাপিয়া ঘোষ। 

এছাড়াও রিসোর্স পার্সন হিসেবে এদিনের মিডিয়া ওয়ার্কশপে উপস্থিত ছিলেন উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিকতা বিভাগের প্রধান ডক্টর শুভ্রজ্যোতি কুন্ডু, অধ্যাপক বরুণ রায়, বিশিষ্ট প্রবীন সাংবাদিক ও নিউজ এডিটর নিধুভূষন দাস, ডিজিটাল মিডিয়া অ্যাসোসিয়েশনের উত্তরবঙ্গের আহ্বায়ক অরুন কুমার। এদিন বিভিন্ন জেলার দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রতিনিধিদের ডিজিটাল মিডিয়া অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে সম্মানিত করা হয়। 

এই দিনের ওয়ার্কশপে অধিকাংশ বক্তা ডিজিটাল মিডিয়ার ভবিষ্যৎ সম্পর্কে যথেষ্ট আশার কথা যেমন বলেন তেমনি সাংবিধানিক সাংবাদিকতা বিষয়ে নানান খুঁটিনাটি প্রশ্নের উত্তর দেওয়া হয় যার মধ্যে ছিল প্রেস আইন, সাংবাদিকদের নীতিমালা, খবর কিভাবে তৈরি করতে হয় সেই বিষয়  সহ নানান প্রসঙ্গ তুলে ধরেন বক্তারা। আলোচনা প্রসঙ্গে উঠে আসে 1952 সালের প্রেস কমিশনের যে রিপোর্ট প্রথম প্রকাশ করা হয় তারপর পরবর্তীকালে নতুন কিছু পরিবর্তন সংযোজন বা পরিবর্তন উল্লেখযোগ্য না হওয়ার ফলে আজকের দিনে সাংবাদিকতা বা মিডিয়া বাধাপ্রাপ্ত হচ্ছে। 

একদিকে বাক স্বাধীনতার অধিকার, অপরদিকে রাইট টু ইনফরমেশন অ্যাক্ট, অফিশিয়াল সিক্রেট অ্যাক্ট, প্রেস এন্ড পেরিওডিক্যাল  অ্যাক্ট সহ আরো নানান বিষয়ে আলোকপাত করা হয়। ডিজিটাল মিডিয়া অ্যাসোসিয়েশনের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি  অরিন্দম রায় চৌধুরী এবং সাধারণ সম্পাদক সুব্রত রায় ভার্চুয়াল মাধ্যমে এই ওয়ার্কশপে সকলের উদ্দেশ্যে বক্তব্য রাখেন। ডিজিটাল মিডিয়ার সরকারি স্বীকৃতি , মিডিয়া কাউন্সিল গঠন এবং মিডিয়া সুরক্ষা আইন সহ অন্যান্য  সুযোগ-সুবিধার প্রদানের জন্য দাবি জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। 

এদিনের অনুষ্ঠানে স্বাগত ভাষন দেন জেলার যুগ্ম সম্পাদক চিন্ময় রায়। অনুষ্ঠানে আগত সকল অতিথি ও মিডিয়া বন্ধুদের ধন্যবাদ জানান ডিজিটাল মিডিয়া এসোসিয়েশনের শিলিগুড়ি ও দার্জিলিং জেলার সভাপতি অর্জুন বর্মন। এদিনের মিডিয়া ওয়ার্কশপে শিলিগুড়ি সহ উত্তরবঙ্গের কোচবিহার, আলিপুরদুয়ার, কালিম্পং, জলপাইগুড়ি, উত্তর  ও দক্ষিণ দিনাজপুর এবং মালদা থেকে প্রতিনিধিরা যোগ দিয়েছিলেন। এই অনুষ্ঠানকে সফল করতে এগিয়ে আসার জন্য শিলিগুড়ি ও দার্জিলিং জেলার মিডিয়া হাউস মালিকদের সম্মানিত করা হয়। ওয়ার্কশপ শেষে অংশগ্রহণকারী প্রত্যেককে মানপত্র প্রদান করা হয়।

Post a Comment

और नया पुराने